স্বেচ্ছায় মেয়ে পালালেও অপহরণ মামলায় যুবক আটক!

স্বেচ্ছায় বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার ৭ দিন পর এক মাদরাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত মাদরাসা ছাত্রীর নাম আখি আক্তার (১৫)। সে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় একটি মাদরাসার ৯ম শ্রেণির ছাত্রী। শুক্রবার ভোরে পার্শ্ববর্তী ভান্ডারিয়া উপজেলার উত্তর ভিটাবাড়ি গ্রাম থেকে ‘অপহরণকারী’ ইউসুফের ফুপা রুবেল জমাদ্দারের বাড়ি থেকে ‘অপহৃত’ মাদরাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ।

উদ্ধারের পর মাদরাসা ছাত্রী আখি আক্তার জানায়, সে স্বেচ্ছায় ইউসুফের হাত ধরে বাড়ি ছেড়েছিল। কেউ তাকে অপহরণ করেনি। এদিকে মাদরাসা ছাত্রীর দায়েরকৃত মামলায় অপহরণকারী হিসেবে ইউসুফকে (১৯) আটক করে পুলিশ। এ ছাড়া অপহরণ মামলার আসামী হিসেবে এর আগে ইউসুফের বাবা আঃ ছালাম (৪৬), মা রহিমা বেগম (৪২) ও বোন খাদিজা বেগমকে (৩২) পুলিশ আগেই গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠায়। আটককৃত ইউসুফ একই মাদরাসার আলীম ক্লাসের ছাত্র।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ বেতমোর গ্রামের সৌদি প্রবাসী শাহজাহান পঞ্চায়েতের মেয়ে মাদরাসা ছাত্রী আখিকে দীর্ঘদিন ধরে পার্শ্ববর্তী আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নের ইউসুফ মাদরাসায় আসা যাওয়ার পথে ‘উত্যক্ত’ করে আসছিল। একপর্যায়ে গত ৩ মে সন্ধ্যায় মাদরাসা ছাত্রী ঘর থেকে বের হলে ইউসুফ তার আত্মীয় স্বজনের সহযোগিতায় আখিকে ‘অপহরণ’ করে।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদি হয়ে গত ৬ মে মঠবাড়িয়া থানায় ৯জনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

এদিকে উদ্ধারের পর মাদরাসা ছাত্রী আখি আক্তার সাংবাদিকদের জানায়- সে স্বেচ্ছায় ইউসুফের সঙ্গে চলে গেছে। কেউ তাকে অপহরণ করেনি।

এ বিষয়ে মঠবাড়িয়া থানার ওসি সৈয়দ আব্দুল্লাহ জানান, ভিকটিম মাদরাসা ছাত্রীকে শনিবার ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পিরোজপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় পাঠানো হবে। গ্রেফতারকৃত ইউসুফকেও শনিবার আদালতে সোপর্দ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares