বেতনের দাবিতে শ্যামলীতে সড়ক অবরোধ করেছে গার্মেন্টের কর্মীরা

বেতনের দাবিতে রাজধানীর শ্যামলীতে সড়ক অবরোধ করেছে গার্মেন্টের কর্মীরা। আলিফ অ্যাপারেলস নামে একটি গার্মেন্টেসে কাজ করে। শ্রমিকরা জানান, নোটিশ ছাড়া বকেয়া বেতন না দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তাই তারা সড়ক অবরোধ করেছেন। বুধবার সকাল ১০টা থেকে এ অবরোধ শুরু হয়।

শ্রমিকরা জানান, গত ১১ আগস্ট তারা ঈদের ছুটিতে যান। ঈদের ছুটি কাটিয়ে বুধবার গার্মেন্ট খোলার কথা ছিল। সকালে এসে তারা গার্মেন্টের গেটে তালা দেখতে পান। এছাড়া গেটে পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। বুধবার থেকে গার্মেন্ট বন্ধ এমন একটি নোটিশ গেটে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়।

এরপরই সড়ক অবরোধ করে শ্রমিকরা। অবরোধের ফলে শ্যামলী থেকে কল্যাণপুরের সড়কের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। শ্রমিকদের সাথে কথা বলে তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ ।

মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বুলবুল বলেন, সর্বশেষ বেলা ১২টা পর্যন্ত শ্রমিকরা সড়কে অবস্থান করছে। পুলিশ তাদের সাথে কথা বলে তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। ঘটনাস্থলে মোহাম্মদপুর থানার ওসি জিজি বিশ্বাসসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত আছেন।

এদিকে অবরোধের বিষয়ে বিক্ষুব্ধ শ্রমিক আলেয়া বেগম বলেন, আমাদের না জানিয়ে সকালে গার্মেন্ট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আমাদের অন্তত একবার জানাতে পারতো। আমরা বেতন পাইনি, গার্মেন্টের গেটের সামনে ২ ঘণ্টা ধরে বসা। কেউ কোন কথা বলে না। কেউ কোন সমাধান দিতে না পাড়ায় আমরা রাস্তায় অবস্থান নিয়েছি।

আরেক শ্রমিক বলেন, বিজিএমইএ’র বিধান অনুযায়ী একটি গার্মেন্ট বন্ধের তিন মাস আগে শ্রমিকদের অবহিত করে তাদের পাওনা পরিশোধ করতে হয়। আমাদের বেতন-বোনাসসহ পাওনা টাকা দিতে হবে। এই দাবি পূরণ না হলে আমরা সড়কেই থাকব।

সাখাওয়াত হোসেন নামে এক শ্রমিক বলেন, একই গার্মেন্টে পাওনা বেতনের জন্য কয়েকমাস আগে আমরা সড়কে নেমে আন্দোলন করেছিলাম। তখন মালিকপক্ষ বলেছিল ৬ মাসের মধ্যে আমাদের পাওনা পরিশোধ করে দেবে। কিন্তু এখন কিছু না বলে হঠাৎ গার্মেন্ট বন্ধ করে দিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares