নির্ভয়ে-নির্বিঘ্নে ভোট দিতে চান ভোটাররা

জামালপুর-৩ (মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ) আসনে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল বলেছেন, নির্ভয়ে-নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে চান ভোটাররা। এজন্য সেনাবাহিনী, আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সার্বিক সহযোগিতা প্রয়োজন। আমরা কোনো সংঘাত চাইনা। নির্ভয়ে ভোট দিতে চাই। আমার বিশ্বাস, ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারলে ধানের শীষের প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়ী হবে।

আজ শুক্রবার দুপুরে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের নাউঘাটা গ্রামে তার নিজ বাড়িতে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য যে পরিবেশ থাকা বাঞ্ছনীয় তা মেলান্দহ ও মাদারগঞ্জ উপজেলায় নূন্যতম পরিবেশ নাই। প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার পর থেকেই আমাদের দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মারধরসহ তাদের বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করছে নৌকা প্রতীকের সমর্থক আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। আহত হয়েছে শতাধিক আমার দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থক। এ ছাড়াও ধানের শীষের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে, প্রচার মাইকিংয়ে বাধা দিয়েছে এবং নির্বাচনী কেন্দ্রে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগ করেছে তারা। উল্টো বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে গায়েবী ও আজগবি মামলা দিয়ে গ্রেফতার করানো হচ্ছে।

তিনি জানান, মেলান্দহ থানায় সাতটি মামলায় ৩২১ জন এবং মাদারগঞ্জ থানায় তিনটি মামলায় ৭৯জনকে আসামী করা হয়েছে। ওইসব মামলায় এ পর্যন্ত ৪২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রতিদিন দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বাড়িতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। বাড়িতে তাদের না পেয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে খারাপ আচরণ করছে তারা। তান্ডব চালাচ্ছে সরকার দলীয় লোকজন। সেইসাথে যুক্ত হয়েছে পুলিশ বাহিনীর তান্ডব। বিএনপি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। আজ শুক্রবার সকালে ছাত্রদল নেতা খোকনকে মারধর করে আহত করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, বিএনপি নেতাকর্মীদের জোর করে আওয়ামী লীগে যোগদান করানো হচ্ছে। আমার নির্বাচনী এলাকা মেলান্দহ ও মাদারগঞ্জ উপজেলায় আনুষ্ঠানিকভাবে গণসংযোগ করতে দেয়া হয়নি। আমার স্ত্রী তুহিন আক্তার শিউলী মাদারগঞ্জে ধানের শীষ প্রতীকের জন্য ভোট প্রার্থনা করতে গেলে তাকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় জিডি নেয়া হয়নি। সার্বিকভাবে মেলান্দহ-মাদারগঞ্জে ভীতিকর ও শ্বাসরুদ্ধকর পরিবেশ বিরাজ করছে। এরপরও আমি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে থাকবো।

সংবাদ সম্মেলনে মেলান্দহ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম রফিকুল ইসলাম রহিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরুল আলম সিদ্দিকী, আজম খান, প্রচার সম্পাদক লুৎফর রহমানসহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares