‘নতুন করে অস্ত্র প্রতিযোগিতা’ প্রশ্নে পরস্পরকে দায়ী করলো যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া

রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে অস্ত্র প্রতিযোগিতার ঝুঁকির বিষয়ে বৃহস্পতিবার জাতিসঙ্ঘে একে অপরকে দোষারোপ করে। খবর এএফপি’র।

ইন্টারমিডিয়েট-রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস (আইএনএফ) চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য পরস্পরকে দায়ী করার পর যুক্তরাষ্ট্র ও মস্কো চুক্তিটি পরিত্যাগ করে। তবে চীন বলেছে, তারা নতুন কোনো ক্ষেপণাস্ত্র চুক্তিতে অংশ নেবে না।

জাতিসঙ্ঘে নিযুক্ত রাশিয়ার ডেপুটি রাষ্ট্রদূত দিমিত্র পলিয়ানস্কি নিরাপত্তা পরিষদকে বলেন, এ সপ্তাহের গোড়ার দিকে ভূমি থেকে উৎক্ষেপণযোগ্য ওয়াশিংটনের একটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো প্রমাণ করে যে ‘অস্ত্র প্রতিযোগিতার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে আমেরিকা।’

যুক্তরাষ্ট্র এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর পর রাশিয়া এ বৈঠকের অনুরোধ জানিয়েছিল। কেননা, ১৯৮৭ সালের আইএনএফ চুক্তির আওতায় এমন মাঝারি-পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

পলিয়ানস্কি আরো বলেন, রাশিয়া অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ প্রশ্নে ‘গুরুত্বপূর্ণ সংলাপের’ জন্য রাশিয়া প্রস্তুত ছিল। অপরদিকে তারা যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড বরদাস্ত করায় ইউরোপীয় দেশগুলোকে দায়ী করছে।

এদিকে তার মার্কিন প্রতিপক্ষ জোনাথন কোহেন বলেন, ‘রাশিয়া ফেডারেশন ও চীন এখনো এমন একটি বিশ্ব পছন্দ করছে যেখানে যুক্তরাষ্ট্র অস্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে আত্ম-সংযম করলেও তারা কোন বাধা ছাড়াই তাদের অস্ত্র তৈরি অব্যাহত রাখবে।’

উল্লেখ্য, রাশিয়ার একটি অস্ত্র পরীক্ষা কেন্দ্রে ভয়াবহ বিস্ফোরণের কয়েক সপ্তাহ পর যুক্তরাষ্ট্র এ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে। কেন্দ্রটিতে মস্কোর সাথে সম্পর্কযুক্ত পশ্চিমা বিশেষজ্ঞদের ধারণা কেন্দ্রটিতে রাশিয়া পারমাণবিক ক্ষমতাধর ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares