তাসকিন-ফরহাদের জন্য খুলে যেতে পারে বিশ্বকাপের দরজা?

‘এটা কঠিন যে ঘরোয়া খেলেই একটা বিশ্বকাপের মতো ইভেন্টে মানিয়ে নেয়া, টপ কোয়ালিটি প্লেয়ার ছাড়া এটা অনেক কঠিন,’ ফরহাদ রেজা বিশ্বকাপের দলে ঢুকতে পারবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে এটা বলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট অপারেশন্সের প্রধান আকরাম খান।

বিশ্বকাপ দলের ১৫ জনের বাইরেও আয়ারল্যান্ড সফরে গিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মোট ১৯ জন।

এর মধ্যে এমন কিছু ক্রিকেটার আছেন যারা বিশ্বকাপের দলে আছেন কিন্তু তারা এখনো পুরোপুরি ফিট নন।

বিশ্বকাপ দলের ১৫ জনের বাইরে আয়ারল্যান্ডে যাওয়া ক্রিকেটাররা হলেন নাইম হাসান. ইয়াসির আলী, তাসকিন আহমেদ ও ফরহাদ রেজা।

যেসব খেলোয়াড় পুরোপুরি ফিট নন তাদের বদলে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলাতেই কি ১৫ জনের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের বাইরে এই চার বাড়তি ক্রিকেটার নেয়া?

কোচ বলেছেন, ‘যদি কেউ ইনজুরিতে পড়ে যায় সেক্ষেত্রে অন্যরা সুযোগ পাবে, আবার এই বাড়তি ক্রিকেটাররা দলের সাথে থেকেও অভিজ্ঞতা নিতে পারবে।’

‘বিশ্বকাপের আগে আমরা কোনো ঝু‍কি নিতে পারছি না। এজন্যই সংখ্যাটা বাড়িয়ে নেয়া হয়েছে। লম্বা একটা টুর্নামেন্ট, কোনো ম্যাচই ফেলে দেয়ার মতো না বিশ্বকাপে। তাই আয়ারল্যান্ড সিরিজকে একটা মাপকাঠি ধরা হতে পারে,’ বলছিলেন আকরাম খান।

তবে এর আগে তাসকিন আহমেদের সম্পর্কে আকরাম খান বলেন, মূলত বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ তাসকিনের ফিটনেস নিয়ে প্রশংসা করেছেন, যে কারণে তাকে ঝালিয়ে দেখার সুযোগ মিস করতে চায়নি নির্বাচকরা।

তামান্না তৃষা, যিনি বাংলাদেশের একজন ক্রিকেট সাংবাদিক ও ক্রিকেট বিশ্লেষক, তার মতে বিশ্বকাপের মতো মঞ্চের জন্য এখন যারা ফর্মে আছেন সেটার চেয়ে অভিজ্ঞদের বেশি সুযোগ দেয়া উচিৎ।

‘তাসকিন আহমেদ একটু ইনজুরিপ্রবণ। কিন্তু তাসকিন আহমেদের অভিজ্ঞতা আছে, বিশ্বমঞ্চে তাসকিন নিজেকে প্রমাণ করেছেন। এই সিরিজে তাসকিন কেমন করে সেটায় বিশেষ গুরুত্ব দেয়া উচিৎ’, বলছিলেন তামান্না তৃষা।

‘নিউজিল্যান্ড সফরের পর আসলে পুরো দল একসাথে খুব বেশি সময় কাটায়নি। পুরো স্কোয়াড যেভাবে ক্যাম্প করে সেটা এখনো দেখা হয়নি। বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ড সিরিজে দলীয় অনুশীলন ও মনোসংযোগের বিষয়টাকে দেখা উচিৎ।’

তিনি আরো যোগ করেন, ‘দেশে যে সাতদিনের ক্যাম্প হয়েছে সেটা আসলে খুবই ছোট, সেটাকে না ধরেই বলছি, যে চারজন বাড়তি আয়ারল্যান্ডে গিয়েছে তারা যথেষ্ট যোগ্য, এমনকি ইমরুল কায়েসকেও দলে আশা করছিলাম আমি।’

তাসকিন ও ফরহাদ রেজার পারফরম্যান্স
২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন তাসকিন আহমেদ। সেবারের পর জাতীয় দলে তাসকিন আর সেভাবে ফেরেননি।

২০১৭ সালের অক্টোবরে ৬টি ম্যাচ খেলেন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে, সেবার নেন দুটটি উইকেট।

২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে দল থেকে বাদ পড়েন তিনি।

মার্চে নিদাহাস ট্রফির দলে থাকলেও এরপর আবারো দল থেকে বাদ পড়েন তাসকিন।

তবে এর মাঝে তাসকিনের নিত্যসঙ্গী ছিল ইনজুরি।

তাসকিন মূলত বল হাতে বিশ্বকাপের দলে ঢোকার দাবি জানান ২০১৯ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে, যেখানে ২২ উইকেট নেন ১৪.৪৫ গড়ে।

কিন্তু নিউজিল্যান্ড সফরের দলে নাম ঘোষণা হওয়ার পর গোড়ালিতে চোট পান তাসকিন আহমেদ।

ফরহাদ রেজা সদ্য শেষ হওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ১৬ ম্যাচে ৩৮ উইকেট নিয়েছেন ১৬.৩৯ গড়ে।

ব্যাট হাতেও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন তিনি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টেও বল হাতে ১৪ ম্যাচে ১৭ উইকেট নেন ফরহাদ রেজা।

ফরহাদ রেজা শেষবার ২০১১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডে খেলেন।

সূত্র : বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares