ছয়বার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল কংগ্রেস!

ভারতে চলছে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনের প্রচারণায় ক্ষমতাসীন বিজেপির অন্যতম প্রধান হাতিয়ার সেনাবাহিনীর চালানো সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। কংগ্রেস নিজেদের আমলে এ ধরনের স্ট্রাইক সম্পর্কে কোনো কিছু না বললেও এবার সেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়েই চাঞ্চল্যকর দাবি তুলেছে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস।

কংগ্রেস নেতা রাজীব শুক্লা দাবি করেছেন, ইউপিএ জমানার শেষ ছয় বছরে ছয় বার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানো হয়েছে। মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন কোন কোন তারিখে ভারতীয় সেনা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল তা প্রকাশ্যে নিয়ে আসেন রাজ্যসভার বিধায়ক রাজীব।

কংগ্রেসসহ ভারতের সবগুলো বিরোধীদল অভিযোগ করছে, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে খুব বেশি প্রচারণা চালাচ্ছে বিজেপি। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসের সেনাবাহিনীর সেই সাফল্যকে নিজেদের সাফল্য বলে প্রচার করছে বিজেপি শিবির।

২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রচারের অন্যতম হাতিয়ার ছিল সেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক। পরবর্তী সময়ে অনেক নির্বাচনে এবং লোকসভা নির্বাচনেও সার্জিক্যাল স্ট্রাইককে হাতিয়ার করেই প্রচার করছে বিজেপি।

এই অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন কংগ্রেস সাংসদ রাজীব শুক্লা। তিনি বলেছেন, মনমোহন সিং-এর সরকার থাকাকালীন ছয় বার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা।

তিনি বলেন, ২০০৮ সালের ১৯ জুন জম্মু-কাশ্মিরের পুঞ্চের ভাট্টাল সেক্টরে, ২০১১ সালের ৩০ আগস্ট এবং ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নীলম নদী উপত্যকার শারদা সেক্টরে, ২০১৩ সালের ৬ জানুয়ারি সাওয়ান পাত্র চেকপোস্টে, ২০১৩ সালের ২৭-২৮ জুলাই নাজাপির সেক্টরে, ২০১৩ সালের আগস্টে নীলম উপত্যকায় এবং ২০১৪ সালের ১৪ জানুয়ারি ইউপিএ জমানার শেষের দিকেও একটি সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালায় ভারতীয় সেনা।

বিজেপি অভিযোগ করতো, কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ’র শাসনামলেই মুম্বাইয়ে ঘটেছিল ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা। সেই হামলার পরে ভারতীয় সেনাবাহিনী সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালাতে চাইলেও তৎকালীন সরকার তার অনুমতি দেয়নি।

কিন্তু রাজীব শুক্লার সদ্য প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, মুম্বাই হামলার আগেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা। কারণ ২০০৮ সালের নভেম্বর মাসে মুম্বাই হামলার শিকার হয়। আর কংগ্রেসের প্রথম সার্জিক্যাল স্ট্রাইক হয় ২০০৮ সালের ১৯ জুন।

তবে তার এ দাবির ব্যাপারে এখন পর্যন্ত বিজেপির পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares