এবার ফেঁসে যাচ্ছেন ট্রাম্পের ছেলেও!

নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে টানাপড়েন পিছু ছাড়ছে না মার্কিন রাজনীতির ।

সিনেটের তদন্তকারী কমিটি এ বার ডেকে পাঠিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রকে। মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের বিষয়ে তাকে হাজিরা দিয়ে সাক্ষ্য দিতে হবে বলে জানা গেছে সিনেট সূত্রে। আর এর ফলে সিনেটের তদন্তকারী কমিটির সঙ্গে দ্বন্দ্বের মুখে ট্রাম্পের জ্যেষ্ঠপুত্র। তবে রিপাবলিকান নেতৃত্বাধীন সেনেট প্যানেল এই প্রথম ট্রাম্প পরিবারের কোনো সদস্যকে তলব করল বলে মনে করা হচ্ছে। ট্রাম্প জুনিয়রকে ঠিক কী জিজ্ঞাসা করা হবে এ বার, তা স্পষ্ট নয়।

এর মধ্যে হোয়াইট হাউস অবশ্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে নিয়ে মুলার তদন্ত সংক্রান্ত নথি প্রকাশ করবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে। মার্কিন কংগ্রেসে প্রবীণ এক রিপাবলিকান সেনেটর গত কাল জানিয়ে দেন ‘রুশ তদন্ত মামলা শেষ (কেস ক্লোজ়ড)।’ যদিও ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে ট্রাম্পের লড়াই ফের পাকাচ্ছে। বিশেষ আইনজীবী রবার্ট মুলারের তদন্ত নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রকাশ না করায় অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বারের বিরুদ্ধে কংগ্রেস অবমাননার অভিযোগ এনেছে হাউস প্যানেল। যার পাল্টা হিসেবে ট্রাম্প আবার তার শাসনকালে এই প্রথম বিশেষ প্রশাসনিক ক্ষমতা (‘এগজিকিউটিভ প্রিভিলেজ’) প্রয়োগ করেছেন গোটা মুলার রিপোর্ট নিয়ে। যার সাহায্যে ওই রিপোর্টে তলব সংক্রান্ত পুরো অংশটি কংগ্রেসের চোখের আড়ালে রাখতে পারবেন তিনি। বস্তুত প্রেসিডেন্টের এই ক্ষমতা প্রয়োগের পরে মার্কিন কংগ্রেস আর সম্পূর্ণ মুলার রিপোর্টের দেখতে চাইতেই পারবে না। হাউস জুডিশিয়ারি কমিটির চেয়ারম্যান জেরল্ড ন্যাডলারের প্রতিক্রিয়া, ‘‘কংগ্রেসকে বাধা দেয়ার জন্য প্রতিদিন এই প্রশাসন একটি নয়া কৌশল আমদানি করে। নজিরবিহীন ব্যাপার!’’ তার সমালোচনা করে হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব সারা স্যান্ডার্স বলেছেন, ‘‘ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি ন্যাডলার ক্ষমতার চূড়ান্ত অপব্যবহার করছেন।’’

এই জটিলতার মধ্যে ট্রাম্প জুনিয়রকে তলব করায় বিস্মিত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। একটি সূত্রে দাবি, ট্রাম্প জুনিয়র সংবিধানের পঞ্চম সংশোধনী অধিকারের (গ্র্যান্ড জুরির নির্দেশ ছাড়া মৃত্যুদণ্ডের যোগ্য অপরাধ বা এই ধরনের গুরুতর অপরাধে কাউকে ডাকা যাবে না) সুবিধা নিতে পারেন অথবা হাজিরা একেবারে এড়িয়ে যেতে পারেন। তবে আর একটি সূত্র আবার মনে করছে, কমিটির কাছে লিখিতভাবে উত্তর জানাতে চান জুনিয়র।

এর আগে ব্যক্তিগত হাজিরা দিয়ে সাক্ষ্য দিয়েছেন ট্রাম্প জুনিয়র। নিউ ইয়র্কের ট্রাম্প টাওয়ারে ২০১৬ সালে ৯ জুনের একটি বৈঠক নিয়ে প্রশ্ন করা হয় তাকে। সেই বৈঠকে মার্কিন প্রচার অফিসারদের পাশে নিয়ে তিনি এক রুশ আইনজীবীর সঙ্গে বৈঠক করেন বলে দাবি। সেখানেই ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিন্টনের বিরুদ্ধে ‘কাদা ছেটানোর’ পরিকল্পনা হয়েছিল বলেও দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares