সুদানে সরকারবিরোধী আন্দোলনে নিহত ১৯

উত্তর আফ্রিকার দেশ সুদানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমনপীড়নে দুই পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন। দেশটির সরকারি সূত্র এই তথ্য জানিয়েছে। সুদানে এই বিক্ষোভের শুরু মূলত রুটির দাম বৃদ্ধির ঘোষণাকে কেন্দ্র করে। প্রথমে রাজধানীর বাইরে শুরু হলেও ক্রমেই তা খার্তুমে ছড়িয়ে পড়ে।

রুটির দাম ছিল ২ সেন্ট। সুদানের সরকার তার দাম বৃদ্ধি করে ৬ সেন্ট করেছে। গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে রাজধানী খার্তুমসহ বিভিন্ন শহরের রাস্তায় বিক্ষোভ করছে সুদানের হাজার হাজার নাগরিক। এসব বিক্ষোভে পুলিশের হামলায় নিহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। সরকারের তরফে ১৯ জন বিক্ষোভকারীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হলেও মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ৩৭ জন নিহত হওয়ার খবরকে ‘বিশ্বাসযোগ্য’ আখ্যা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার দেশটির রষ্ট্রিীয় টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সরকারি মুখপাত্র বশারা জুমা বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর দু’জনসহ মোট ১৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এর আগে ৯ জন মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করছিল সরকার। গত বৃহস্পতিবার ধর্মঘট ডাকে সুদানের সাংবাদিকদের একটি সংগঠন। ‘সুদানিজ জার্নালিস্টস নেটওয়ার্ক নামে সংশ্লিষ্ট সংগঠনটি সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নিশ্চিতে কাজ করে। তাদের অভিযোগ, সরকার হরহামেশা সাংবাদিকদের হয়রানির লক্ষ্যবস্তু বানায়।

‘সুদানিজ জার্নালিস্টস নেটওয়ার্ক’ ‘বিক্ষোভকারীদের ওপর সরকারি দমনপীড়নের প্রতিবাদে ডিসেম্বরের ২৭ তারিখ থেকে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়। তারা আরো জানিয়েছে, সংবাদপত্রের স্বাধীনতার ওপর সরকারের বর্বরোচিত আঘাতের প্রতিবাদ করাও এই ধর্মঘটের লক্ষ্য। তারা সুদান সরকারের বিরুদ্ধে সেন্সরশিপ আরোপ করা থেকে শুরু করে পত্রিকা জব্দ করার মতো কর্মকাণ্ডের কথা উল্লেখ করেছেন। সুদানের ‘ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি’ নামে সরকারি সংস্থাটি অত্যন্ত শক্তিশালী। তারাই বর্তমানে সরকারবিরোধীদের দমনপীড়নের নেতৃত্ব দিচ্ছে। এ সংস্থাটি যখন তখন প্রকাশিত নিবন্ধের বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে সংবাদপত্র জব্দ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares