নারী আন্দোলনকে বেগবান করতে হলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে

৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় তিনি বলেন, দেশের নারী সমাজের মুক্তির বিষয়টি ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির’ সাথে সম্পর্কিত।

ফখরুল বলেন, ‘বাংলাদেশের গণতন্ত্রের মুক্তি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত এবং নারী সমাজের মুক্তিও দেশনেত্রীর মুক্তির সাথে জড়িত।’

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবসে নারী সমাজকে শপথ নিতে হবে যে, আজকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আমরা নারী সমাজের যে আন্দোলন, তাকে বেগবান করতে চাই।’ বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, বর্তমান সরকারের ‘দমন-পীড়ন’ থেকে এখন নারীরাও ‘রেহাই পাচ্ছে না’।

‘বাংলাদেশে নারীরা সবচেয়ে বেশি নিগৃহীত হচ্ছে। এই দখলদার সরকার যারা সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে জনগণের অধিকারকে বঞ্চিত করে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেছে। তারা আজকে সমগ্র জাতির ওপর অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে, তারা আজকে আমাদের মা-বোনদেরকেও রেহাই দিচ্ছে না, আমাদের মা-বোনদের নির্যাতন করে কারাগারে পাঠাচ্ছে।’

বিএনপি নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় হতাশা প্রকাশ করে ফখরুল মানববন্ধনে বলেন, ‘যিনি নারীদের কথা বলেছেন, সংগ্রাম করেছেন, নারী জাগরণের জন্য আন্দোলন করেছেন, বাংলাদেশের নারীদের ক্ষমতায়ন করার জন্য কাজ করেছেন, বাংলাদেশে মেয়েদের লেখাপড়ার জন্য সবচেয়ে বড় অবদান রেখেছেন, আজকে তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে আটক করে রাখা হয়েছে।’

খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ নারীদের উপর নির্যাতন বন্ধের দাবিতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে মানববন্ধনে অংশ নেওয়া মহিলা দলের কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আসুন, আজকে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই, আমাদের যে দাবি আমরা সোচ্চার হই সেই দাবিতে।’

‘দেশনেত্রীকে মুক্তি দিতে হবে, নারী সমাজকে মুক্তি দিতে হবে, নারী সমাজের ওপর নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। তাহলেই শুধুমাত্র নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করা সম্ভব হবে। আসুন, দেশনেত্রীর মুক্তির জন্য আমরা সবাই আন্দোলনে নেমে পড়ি।’

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস মানববন্ধনে বলেন, ‘আজ এই আন্তর্জাতিক নারী দিবসে অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হয়, বর্তমান যে নারীপ্রধান দেশ চালাচ্ছেন তিনি এবং সহযোদ্ধা নারীরা ছাড়া আমরা কোনো নারীরা কি শান্তিতে আছি? নিরাপদে আছি? স্বাধীনভাবে আছি?’

‘নেই। আমাদের কারও নিরাপত্তা নেই, আমাদের কারও কথা বলার স্বাধীনতা নেই, প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে আমরা নির্যাতিত হচ্ছি। আমাদের নারী সবচাইতে ধর্ষিত এবং নির্যাতিত এ সরকারের সময়ে।’

আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে ও মহিলা দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খানের পরিচালনায় এ মানববন্ধনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, সিনিয়র সহসভাপতি নুরজাহান ইয়াসমীন, সহ-সভাপতি জেবা আমিন খান, কেন্দ্রীয় নেত্রী পেয়ারা মোস্তফা, শামসুন্নাহার ভূঁইয়া, সাবিনা ইয়াসমীন, আমেনা বেগম, নুরুন্নাহার, পাপিয়া, রোকেয়া চৌধুরী ববি, মাহিয়া ইসলাম নয়ন বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

স্বাগতম

আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমাদের পথচলা

অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ সারদিন এর সাথে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

shares